টাঙ্গাইলশনিবার , ২৩শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
  1. অর্থনীতি
  2. আইন-আদালত
  3. আন্তর্জাতিক
  4. খেলাধুলা
  5. গণমাধ্যম
  6. জবস
  7. জাতীয়
  8. টপ নিউজ
  9. টাঙ্গাইলে করোনা মহামারি
  10. তথ্যপ্রযুক্তি

বিমানবন্দরে সোয়া ৯ কেজি সোনাসহ নিরাপত্তাকর্মী আটক

অনলাইন ডেস্ক
আপডেট : অক্টোবর ৯, ২০২১
Link Copied!

চট্টগ্রামের শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বেলাল উদ্দিন নামে বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের (বেবিচক) এক নিরাপত্তাকর্মীর দেহ তল্লাশি করে ৮০টি সোনার বার জব্দ করেছে কাস্টমস গোয়েন্দা। বেলাল উদ্দিনের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ও ফৌজদারি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

শনিবার (৯ সেপ্টেম্বর) সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানিয়েছেন কাস্টমস গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. মো. আব্দুর রউফ।

তিনি জানান, সোনাসহ আটক হওয়ার পর জোর- জবরদস্তি করে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন বেলাল উদ্দিন। বিমানবন্দরে উপস্থিত এনএসআই কর্মকর্তাদের সহায়তায় অন্যান্য সংস্থার সদস্যদের উপস্থিতিতে তার দেহ তল্লাশি করে কোমরে বেল্টের নিচ থেকে তিনটি প্যাকেট জব্দ করা হয়। প্যাকেটগুলো হলুদ স্কচটেপ দিয়ে মোড়ানো ছিল। তিনটি প্যাকেটে ৮০টি সোনার বার পাওয়া যায়। এসব সোনার ওজন ৯ কেজি ২৮০ গ্রাম, বাজারমূল্য প্রায় ৬ কোটি ৬৪ লাখ টাকা।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে বেলাল উদ্দিন দাবি করেছেন যে, প্যাকেটগুলো টয়লেটে পরিত্যক্ত অবস্থায় ছিল। সেখান থেকে তিনি নিয়ে আসেন।

ড. মো. আব্দুর রউফ জানান, গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে জানা যায়, দুবাই থেকে চট্টগ্রামগামী বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ‘বিজি ১৪৮’ ফ্লাইটে সোনা চোরাচালান হতে পারে। এর পরিপ্রেক্ষিতে বিমানবন্দরের বিভিন্ন পয়েন্টে কাস্টমস গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা সতর্কতা অবস্থান নেন। বিমানটি আনুমানিক সকাল ৮ টা ২৫ মিনিটে শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে। একই সঙ্গে আনুমানিক ৯টা ১০ মিনিটে মাসকট থেকে আসা ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইট এবং সাড়ে ৮টায় মাসকট থেকে আসা ওমান এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইট বিমানবন্দরে অবতরণ করে। কাস্টমস গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের উপস্থিতি টের পেয়ে বেবিচকের নিরাপত্তাকর্মী বেলাল উদ্দিন অ‌্যাপ্রোন এলাকায় সন্দেহজনকভাবে দৌঁড় দেয়। কাস্টমস গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের কর্মকতারা তাকে তাড়া করে ধরে ফেলেন।

চলতি অর্থবছরে (২০২১-২০২২ ) কাস্টমস গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তর এখন পর্যন্ত ৫৪ দশমিক ১১ কেজি সোনা জব্দ করেছে, যার আনুমানিক দাম প্রায় ৩৮ কোটি টাকা।
এর আগে ২০২০-২০২১ অর্থবছরে ১৭৪ দশমিক ৪৯ কেজি এবং ২০১৯-২০২০ অর্থবছরে ১৮০ দশমিক ৩৫ কেজি সোনা জব্দ করা হয়।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।