টাঙ্গাইলমঙ্গলবার , ২৬শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
  1. অর্থনীতি
  2. আইন-আদালত
  3. আন্তর্জাতিক
  4. খেলাধুলা
  5. গণমাধ্যম
  6. জবস
  7. জাতীয়
  8. টপ নিউজ
  9. টাঙ্গাইলে করোনা মহামারি
  10. তথ্যপ্রযুক্তি

মাদকসেবী সন্তানের নির্যাতনে চবি ডিপুটি রেজিস্টার আহত

অনলাইন ডেস্ক
আপডেট : অক্টোবর ৩, ২০২১
Link Copied!

মাদকসেবী সন্তানের হাতে দীর্ঘদিন ধরেই শারীরিক ও মানসিক নির্যাতনের শিকার হয়ে আসছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিপুটি রেজিস্টার মো. জাফরুল আলম চৌধুরী (৪৯)।

মাদক সেবনের জন্য টাকা না দিলেই বাসার জিনিসপত্র তছনছ, উশৃঙ্খল আচরণের পাশাপাশি বাবার গায়ে হাত তুলতেও দ্বিধা করে না সন্তান শাখাওয়াত শাহরিয়ার চৌধুরী (২৭)। তবে শেষ পর্যন্ত পিতার দায়ের করা মামলায় পুলিশ এই সন্তানকে গ্রেপ্তার করেছে।

চট্টগ্রামের পাঁচলাইশ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) জসিম উদ্দিন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন। তিনি রাইজিংবিডিকে জানান, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিপুটি রেজিস্টার মোহাম্মদ জাফরুল আলম চৌধুরী দীর্ঘদিন ধরেই নিজের মাদকসেবী সন্তানের হাতে নির্যাতিত হয়ে আসছিলেন। সর্বশেষ গত ১ অক্টোবর দুপুরে বাসার বাথরুমে ওজু করছিলেন তিনি। এই সময় মাদক সেবনের জন্য বাবার কাছে চিৎকার করে নগদ টাকা দাবি করে সন্তান শাখাওয়াত শাহরিয়ার চৌধুরী। কিন্তু বাবা জাফরুল আলম চৌধুরী মাদক সেবনের জন্য টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানালে ছেলে তাকে বাথরুমের মধ্যেই এলোপাতাড়ি কিল-ঘুষি লাথি মেরে বাথরুমে ফেলে দেয়। একপর্যায়ে তাকে হত্যার উদ্দেশ্যে চেয়ার দিয়ে মাথায় আঘাত করলে তিনি মাথায় গুরুতর রক্তাক্ত জখম হন। আহত অবস্থায় তার চিৎকার শুনে তার স্ত্রী এগিয়ে আসলে তার ছেলে মাকেও প্রাণ নাশের হুমকি দিয়ে চলে যায়। এই ঘটনায় বাবা জাফরুল আলম চৌধুরী সন্তানের বিরুদ্ধে নগরীর পাঁচলাইশ থানায় মামলা দায়ের করলে গতকাল ২ অক্টোবর পাঁচলাইশ থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে এই কুলাঙ্গার সন্তানকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়। গ্রেপ্তারের পর শাখাওয়াত শাহরিয়ার বাবাকে নির্যাতনের সত্যতা স্বীকার করেছে বলে পুলিশ জানিয়েছে। তাকে আজ আদালতে সোপর্দ করা হবে।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।