টাঙ্গাইলশুক্রবার , ২২শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
  1. অর্থনীতি
  2. আইন-আদালত
  3. আন্তর্জাতিক
  4. খেলাধুলা
  5. গণমাধ্যম
  6. জবস
  7. জাতীয়
  8. টপ নিউজ
  9. টাঙ্গাইলে করোনা মহামারি
  10. তথ্যপ্রযুক্তি

৩ কোটি টাকা ব্যয়ের পর ৯ বছরেও শেষ হয়নি সড়ক ও ব্রিজ

অনলাইন ডেস্ক
আপডেট : সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২১
Link Copied!

মাদারীপুরে ডাসারে চলবল গ্রামে প্রায় ৯ বছর আগে একটি সড়ক ও দুটি ব্রিজ নির্মাণের উদ্যোগ নেওয়া হয়। দুটি ব্রিজই অর্ধেক কাজ করে ফেলে রাখা হয়েছে। আর সড়কটিও নির্মিত হয়নি আজো।

অথচ এই সড়ক ও ব্রিজের অভাবে ভোগান্তিতে আশপাশের ১০ গ্রামের মানুষ। প্রতি বর্ষার মৌসুমেই গ্রামবাসীকে পড়তে হচ্ছে চরম দুর্ভোগে। অন্যদিকে ডাসার ও কোটালীপাড়ার বিল অঞ্চলের মানুষ বঞ্চিত হচ্ছেন সহজ যাতায়াত সুবিধা থেকে।

এসব প্রশ্নের উত্তরে মাদারীপুর সড়ক বিভাগ বলছে, এই ব্রিজ ও সড়ক নতুন করে নির্মাণের জন্য চেষ্টা করা হচ্ছে।

সড়ক বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, ডাসার উপজেলার চলবল গ্রামে ৫ কিলোমিটারের সড়কটি ২০১২ সালে নির্মাণের উদ্যোগ নেয় মাদারীপুর সড়ক ও জনপথ। এরই অংশ হিসেবে দুটি ব্রিজের নির্মাণ কাজও শুরু করে সড়ক বিভাগ। ব্রিজ দুটির নির্মাণ কাজ অর্ধেক শেষ হয়। রামশীল বাজার ও দক্ষিণ ডাসার সংযোগ সড়ক নামে এই প্রকল্পে দুটি ব্রিজ নির্মাণে ২০১৫ সাল পর্যন্ত ৩কোটি ৭৬ লাখ টাকা ব্যয় হয়। নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে মাত্র ৩০ শতাংশ। এরই মধ্যে স্থানীয় সংসদ সদস্য সৈয়দ আবুল হোসেনকে যোগাযোগ মন্ত্রণালয় থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়। এরপরই এই প্রকল্পের অর্থায়ন বন্ধ হয়ে যায়। তাই বন্ধ হয়ে যায় নির্মাণ কাজ।

স্থানীয়দের দাবি, সড়ক ও ব্রিজ না থাকায় দুর্ভোগে পড়ছে এই বিল অঞ্চলের ১০টি গ্রামের কয়েক হাজার মানুষ। সবচেয়ে বেশি সমস্যায় পড়তে হচ্ছে রোগী ও স্কুলগামী শিশুদের। স্থানীয়রা এই বিল অঞ্চলের মানুষ ও স্কুলের শিক্ষার্থীদের সহজে যাতায়াতে জন্য রাস্তাটি দ্রুত নির্মাণের আকুতি জানিয়েছেন।

স্থানীয় বাসিন্দা সৈয়দ রাকিবুল ইসলাম বলেন, সাবেক যোগাযোগ মন্ত্রী সৈয়দ আবুল হোসেন মন্ত্রী থাকাকালীন সময় এই এলাকায় দুটি ব্রিজ ও একটি সড়ক নির্মাণের উদ্যোগ নেয়। এরই অংশ হিসেবে দুটি ব্রিজের অর্ধেক কাজ শেষও করে। কিন্তু তিনি মন্ত্রীত্ব হারানোর পর বন্ধ হয়েছে এই সড়ক ও ব্রিজের নির্মাণ কাজ। আমরা চাই আবার দ্রুত কাজ শুরু হোক।

স্থানীয় চলবল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নারায়ণ চন্দ্র সরকার বলেন, দীর্ঘদিন আগে এই রাস্তা ও ব্রিজের কাজ শুরু করা হলেও এখন কাজটি বন্ধ। আমাদের ছোট ছোট বাচ্চাদের স্কুলে যেতে কষ্ট হয়। রাস্তা ও ব্রিজ না থাকায় অসুস্থ রোগীদের নিয়ে দুর্ভোগে পড়তে হয়।

মাদারীপুর সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম বলেন, এই সড়কের দুটি ব্রিজের অর্ধেক কাজ শেষে অর্থ সংক্রান্ত জটিলতায় নির্মাণ কাজ বন্ধ রয়েছে। তবে এখন নতুন করে এই রাস্তাটি যাতে দ্রুত সময়ের মধ্যে নির্মাণ করা যায় সেই জন্য সড়ক বিভাগ কাজ করে যাচ্ছে। ইতোমধ্যে নতুন করে ডিজাইন প্রণয়ন করা হয়েছে। সাইট ভিজিটও করা হয়েছে। শিগগিরই কাজ শুরু হবে।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।